বৃষ্টির মৌসুমে চুলের যত্ন

বৃষ্টির মৌসুমে চুলের যত্ন




গ্রীষ্মের দাবদাহে যখন জনজীবনের যায়যায় অবস্থা, তখন একপশলা বৃষ্টি যেন শান্তির শীতল পরশ! বাড়ি ফেরার পথে তাই অনেকেই বৃষ্টি ভেজার লোভ সামলাতে পারেন না। বৃষ্টিতে ভিজতে মানা নেই তবে খেয়াল রাখতে হবে যে এসময় চুলের প্রয়োজন বিশেষ যত্নের। বৃষ্টিতে চুল ভিজে গেলে চুল অবশ্যই ভালো করে ধুয়ে নেয়া উচিত। নয়তো বৃষ্টির পানি মাথায় বসে যেমন ঠান্ডা লেগে যাবার ভয় থাকে, তেমনি চুলে জট পাকিয়ে যায়।

অনেকেই মনে করেন বৃষ্টির দিনের স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়ায় প্রতিদিন চুল ভেজানোর প্রয়োজন নেই। কিন্তু এরকম সময়েই আসলে রোজ চুল ধোয়া উচিত। কারণ স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়ায় চুলের গোড়া ভিজে যায়। ফলে ভেজা চুলের গোড়ায় ফাংগাস হওয়ার ব্যাপক সম্ভাবনা থাকে।

যাঁরা প্রতিদিন বাইরে যান, তাঁরা একদিন পরপর এবং যাঁরা বাইরে খুব একটা বের হন না তাঁরা সপ্তাহে অন্তত দুবার শ্যাম্পু করুন। যাঁদের প্রতিদিন শ্যাম্পু করার প্রয়োজন হয়, তাঁরা মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। শ্যাম্পু শেষে চুলের ধরন অনুযায়ী কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। ভেজা চুল কখনোই ঘষে ঘষে মুছবেন না, এতে চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে পড়ে।

স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুলের জন্য হেয়ার অয়েল মাসাজ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিশেষ করে বর্ষাকালের স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশে চুলের যত্নে বিশেষ ধরনের অয়েল মাসাজের প্রয়োজন হয়। যাঁদের চুল নেতিয়ে পড়ে বা ম্রিয়মাণ হয়ে পড়ে তাঁরা একটি পাকা কলা ভালো করে চটকে নিন। এরপর এতে এক চা চামচ অলিভ অয়েল মেশান। এই মিশ্রণটি পুরো চুলে ভালো করে লাগান। পনেরো মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

যাঁদের চুল অত্যন্ত ভঙ্গুর ও রুক্ষ তাঁরা দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েলের সাথে এক টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে হালকা গরম করে নিন। মিশ্রণটি পুরো চুলে লাগান, মাথার ত্বকে লাগাবেন না। পনেরো থেকে বিশ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন।

চুলের উজ্জ্বলতা ও ঝরঝরে ভাব ধরে রাখতে এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, এক টেবিল চামচ নারকেল তেল ও একটা ভিটামিন ই ক্যাপসুল একসাথে মিশিয়ে হালকা গরম করে নিন। পুরো চুল ও চুলের গোড়ায় লাগিয়ে হালকা মাসাজ করুন। আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা পর চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

লক্ষ্য রাখুন :

চুল বৃষ্টিতে ভিজে গেলে বাড়ি ফিরে অবশ্যই মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। বেবি শ্যাম্পুও ব্যবহার করতে পারেন।

চুল তাড়াতাড়ি শুকানোর জন্য বারবার হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করলে চুল তার স্বাভাবিক ময়েশ্চার হারিয়ে ভঙ্গুর হয়ে পড়ে।

চুলে জটা লাগলে প্রথমে আঙুল দিয়ে জট ছাড়িয়ে নিন তারপর মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান।

চুল ভেজা রাখবেন না। ভেজা চুলে খুশকি হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

ভেজা চুল বেঁধে রাখবেন না, এতে চুল দুর্বল হয়ে যায় ও চুল পড়া বেড়ে যায়।

বৃষ্টির সময় বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকে। তাই এসময় হেয়ার স্ট্রেটনিং, কার্লিং বা পামিং যতটা কম করা যায় তত ভালো।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me