শারদীয় সাজ


এই রোদ এই বৃষ্টি— এমন পরিস্থিতি এলে বুঝতে হয় শরত চলছে। শরত মানে অনেক সময় ভীষণ গরম হয়ে ওঠে বাতাসটাও। কারণ বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ থাকে বেশি। ফলে ভারী বাতাস তাপ সঞ্চয় করে রাখে সূর্য থেকে। তালপাকা গরম বলে একে। এমন সময় কী পোশাক পরা যায়, তা নিয়েও কিন্তু ভাবতে হয়। কারণ সদ্যই গ্রীষ্ম কাটিয়ে ওঠার পর শরতের গরম ভাপ কাটাতে জুতসই পোশাকের বিকল্প নেই।

বিশ্বজুড়েই ফ্যাশন ডিজাইনাররা এ সময় সুতির পোশাক পরতে উপদেশ দেন। রঙের ক্ষেত্রে উজ্জ্বল অথবা কম উজ্জ্বলে বিশেষ সুবিধা পাওয়া যায়, এমন তথ্য সঠিক নয়। তবে বাংলাদেশের আবহাওয়ায় উজ্জ্বল রঙের প্রতি একটা বিশেষ আকর্ষণ থাকে। এখানকার ক্রেতাদের পছন্দও মূলত রঙটাই। রঙ ভালো হলে এরপর নকশার বিষয়ে তারা মাথা ঘামায়। এ কারণে রঙের প্রতিই বেশি আগ্রহী থাকে ফ্যাশন হাউসগুলোও।


শরতে যেমন সাদা, কমলা, নীল, সবুজ ইত্যাদি রঙের প্রাধান্য থাকে। এর মধ্যে সাদা অথবা কমলায়ই বেশি আগ্রহী ক্রেতারা। দেশী দশ ঘুরে দেখা গেল, শরতের পোশাকের বড়সড় আলাদা কোনো প্রস্তুতি নেই। আসছে ঈদ ও পূজায়ই নতুন পোশাক তৈরির প্রস্তুতি চলছে। তবে দেশী ফ্যাশন হাউসগুলো প্রাত্যহিক পোশাকের কিছু আয়োজন করেছে। বেশির ভাগই শাড়ি ও ফতুয়া। ফতুয়ায় সাদার সঙ্গে কমলা, ইত্যাদি রঙের ব্যবহার হয়েছে। শাড়িতেও রঙের ব্যবহার একই রকম। তবে আসছে পূজায় আরো বাহারি শাড়ি ও ফতুয়া বাজারে আসার আশ্বাস দিলেন বিক্রেতারা।


ফলে রঙের চিন্তা না করলেও যেসব বিষয়ে এ শরতে গুরুত্ব দিতে পারেন, সেগুলোয় একবার নজর বুলিয়ে নিন।


 সুতি কিংবা সুতির মিশ্রণে তৈরি পোশাক পরার দিকেই খেয়াল রাখতে হবে বেশি। যারা অফিসে যাবেন, তারা সাদা কিংকা হালকা কোনো রঙ বেছে নিতে পারেন। সিল্কের পোশাকও এ সময়ে পরা যায়। আর স্বাভাবিক সময়ে উজ্জ্বল রঙ ব্যবহার করলেও একটু ঢিলেঢালা কিছু পরুন। এতে বাতাস চলাচলের মধ্য দিয়ে শরীর ঠাণ্ডা হবে।


 জিন্স কিংবা নরমাল প্যান্ট পরতে সমস্যা নেই। গ্যাবার্ডিনের প্যান্টও এ সময়ে অনেকেই পরে থাকেন। এতে তারা আলাদা স্বাচ্ছন্দ্য অনুভব করেন। মেয়েদের জন্য বিশেষত এ সময়ে গ্যাবার্ডিনের প্যান্ট উপকারী। কারণ আঁটসাঁট প্যান্ট পরলে তা স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়া নানা মুশকিল ঘটাতে পারে।


মাথায় কোনো কাপড় বাঁধলে হুট করে নামা বৃষ্টির পানি থেকে রেহাই পাওয়া যায়। কারণ এই বৃষ্টি আবার এই রোদ এসে চুলের পানি আর ঘাম মিশে উত্কট গন্ধই শুধু ছড়াবে না; চুলের ক্ষতিও করবে নানাভাবে। বৃষ্টিতে মিশে থাকা নানা রকম খনিজ বিষয়ে এ সময়ে সজাগ থাকাই উত্তম। তাছাড়া এ শরতে বাতাসও থাকে খুব, সঙ্গে ধুলো তো আছেই। ফলে মাথায় কোনো স্কার্ফ বেঁধে নিলে তা যেমন আলাদা ফ্যাশন বলে বিবেচিত হবে, তেমনি সুরক্ষা করবে চুলকেও।


গরমে হয়তো অনেকেই স্যান্ডেল পরে চলাফেরা করেছেন। এখন জুতা বেশ আরামদায়ক হবে। তাছাড়া বৃষ্টির পানি থেকে সুরক্ষা দিতেও জুতা এ সময়ে বেশ উপকারী। ফলে এ সময়ে অনেকেই কাপড়ের জুতা পরতে চান। চামড়ার চেয়ে কাপড়ের জুতা শরতে বিশেষ আরামের কারণ হয়ে ওঠে।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me