দাম্পত্য সম্পর্কে যে ভুল ধারণাগুলো আপনার জীবনে অশান্তির কারণ! -

 
 দাম্পত্য সম্পর্ক খুবই নাজুক একটি সম্পর্ক। সামান্য কারণেই এই সম্পর্কে আসতে পারে টানাপোড়ন। সামান্যতেই শুরু হতে পারে ভুল বোঝাবুঝি। সে কারণে দাম্পত্য সম্পর্কের ব্যাপারে সকলের সতর্ক থাকাই বুদ্ধিমানের কাজ। কিন্তু আমাদের সমাজে এই দাম্পত্য সম্পর্ক বিষয়ে রয়েছে ভয়ংকর কিছু ভুল ধারণা। এই সকল ভুল ধারণাগুলো আমরা পোষণ করে আসছি যুগের পর যুগ। কিন্তু এই সকল ভুল ধারণাগুলোর কারণেই সৃষ্টি হচ্ছে জীবনে অশান্তির, যা আমরা কেউই বুঝতে পারছি না। তাই আমাদের জানতে হবে কোন ভুল ধারণাগুলো আমরা পোষণ করে আসছি। এবং দাম্পত্য জীবনকে সুস্থ রাখতে চাইলে আমাদের দূর করতে হবে এই ধারণা গুলোকে।

‘যদি সত্যিকার ভালোবাসা হয়, তবে একে ওপরের চাওয়া-পাওয়া বুঝতে পারে’

অনেকেই মনে করেন ‘যে আমাকে ভালোবাসবে সে আমার মনের খবর পেয়ে যাবে আমার মুখের ভাব দেখেই। আর যদি বুঝতে না পারে তবে সে আমাকে কখনোই ভালোবাসেনি’।


এটি একটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। কেউ কারো মনের কথা জানতে পারে না যদি না সে মনের ভাষা পড়ার ক্ষমতা রাখেন। এই ভুল ধারণাটি একটি সুস্থ স্বাভাবিক সম্পর্কে ভাঙন ধরিয়ে দিতে পারে। আপনার মনের কথা আপনার সঙ্গীর কাছে তুলে না ধরলে চলবে না। এতে আপনিই দুঃখ পেয়ে তার কাছ থেকে দূরে সরে যাবেন এবং সম্পর্কে দূরত্বের সৃষ্টি হবে।

‘যে সত্যিকারের ভালোবাসে সে সব কিছু করতে পারবে’

গল্প-উপন্যাস, সিনেমা-নাটকে ভালোবাসার জন্য, একে অপরের জন্য সব কিছু করতে পারলেও বাস্তবের জীবন কিন্তু পুরোপুরি ভিন্ন। আপনার স্বামী/স্ত্রী যদি আপনাকে ভালোবাসেন তবে আপনার জন্য সব কিছু করতে পারবেন এই ধরণের ভুল ধারণা শুধুমাত্র প্রত্যাশা বাড়ায় এবং ভুল পথে চলার অনুপ্রেরণা দেয়। বাস্তব জীবনে এই ধরণের কাল্পনিক কিছু করা সম্ভব নয়। বাস্তব জীবনে সাধ্যের একটি নির্দিষ্ট গণ্ডি রয়েছে, যে কারণে কাল্পনিক কোনো কাহিনীর মত সব কিছু করে ফেলা সম্ভব নয় কারো পক্ষেই।

 
‘সন্তান হলে সম্পর্ক আরও গভীর হয়’

যেসব দম্পতিরা দাম্পত্য কলহে জড়িয়ে যান তাদেরকে পরামর্শ দেয়া হয় সন্তান জন্মদানের। অনেকের মতে দম্পতির মাঝে সন্তানের আগমনে সম্পর্ক আরও গাঢ় এবং সুমধুর হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই কথাটি সত্যি হলেও সকল ক্ষেত্রে এটি সত্যি নয়। অনেক ক্ষেত্রে বরং উল্টোটি ঘটতে দেখা যায়। সন্তান হলে স্বামী-স্ত্রী একে অপরকে অনেক ক্ষেত্রে কম সময় দিতে পারেন যা মাঝে মাঝে সম্পর্কে আরও কঠিন মোড় নিয়ে আসে। সুতরাং সন্তান নেয়াই সকল সমস্যার সমাধান নয়।


‘ঈর্ষা ভালোবাসার লক্ষণ’

অনেককে বলতে দেখা যায়, ‘আমি যদি কাউকে ভালোবাসি তবে তাকে অন্য কারো সাথে দেখলে ঈর্ষা তো হবেই’। কিন্তু সত্যি কথা হলো ঈর্ষা বা হিংসা কখনোই ভালোবাসার লক্ষণ হতে পারে না।

ঈর্ষা বা হিংসা করলে সম্পর্কে ফাটল ধরে। আপনার স্বামী/স্ত্রীর অন্য কারো সাথে মেলামেশা আপনি ঈর্ষা বা হিংসার দৃষ্টিতে দেখলে আপনার মনের শান্তি নষ্ট হবে এবং খুব দ্রুত ঈর্ষা সন্দেহে পরিনত হবে। এবং সন্দেহ সম্পর্কের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।


‘সম্পর্ক ভালো থাকলে আর কিছুই করার প্রয়োজন নেই’

যেসব দম্পতির মধ্যে সম্পর্ক ভালো তারা অনেক সময় ভেবে থাকেন যেমন আছে চলতে থাকুক, এর বাড়তি কিছুই করার দরকার নেই। কিন্তু এটি অনেক বড় ভুল ধারণা। একটানা যেকোনো জিনিস খুব দ্রুত একঘেয়ে হয়ে যায়। এতে বিতৃষ্ণা চলে আসে সম্পর্কে। যত ভালো সম্পর্কই থাকুক না কেন নিত্য নতুন ভাবে কোনো কিছু না করে সম্পর্কে মধুরতা না আনলে সম্পর্কে অনেক ক্ষেত্রে তৃতীয়জনের প্রবেশ ঘটে। তাই এই ভুল ধারণাটি দূর করুন।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me