দিনে ভিক্ষা, রাতে তিন কোটি টাকার বাড়িতে বসবাস!

আর্থিক অবস্থা যথেষ্ট ভালো হওয়া সত্ত্বেও ভিক্ষাবৃত্তি না ছাড়ায় এক পেশাদার ভিক্ষুককে জেলে পাঠিয়ছে বৃটেনের আদালত। ৩৭ বছর বয়স্ক এই ভিক্ষুকের নাম সিমন রাইট। মানুষের কাছে হাত পেতেই সে বছরে প্রায় ৫ড় হাজার পাউন্ড (প্রায় ৫৮ লাখ টাকা) আয় করে! তার বিরুদ্ধে অভিযোগ সারাদিন ভিক্ষা করে সে যে বাড়িতে ঘুমান যায় তার দাম তিন লাখ পাউন্ড (তিন কোটি ৪৮ লাখ টাকা)!

20130712020812.jpg_5546_0.20130712020812 

জানা গেছে, রাস্তার পাশে ছেঁড়া জামা পরে বসেন সিমন। তার হাতের সাইনবোর্ডে লেখা থাকে- হোমলেস অ্যান্ড হাংরি। এভাবে বসে থেকেই তিনি পথচারীদের কাছ থেকে দিনে প্রায় ২০০ পাউন্ডের সমপরিমাণ উপহার সামগ্রী পেতেন। আর সেগুলো নিয়ে তিনি রাতে তিন লাখ পাউন্ডের বাড়িতে ফিরে যেতেন। ওয়স্টেমিনস্টার সিটি কাউন্সিলের প্রহরীরা রাইটকে লেইসেস্টার স্কয়ারে ভিক্ষা করতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।ঘটনাটা গত মাসের। তখনই ম্যাজিস্ট্রেটরা লন্ডনের রাস্তায় ভিক্ষা করার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে তাকে আবার ভিক্ষা করতে দেখা গেছে। এ কারণেই তার ঠিকানা হয়ছে কয়েদখানায়।

এ বিষয় কাউন্সিলর নিকি অ্যাইকেন বলেন, আমরা মানুষকে অনুরোধ করব যেন রাস্তার ভিক্ষুককে তারা সরাসরি টাকা না দেন। যদি সত্যিই কেউ দান করতে চান তবে সেটা গৃহহীন চ্যারিটি প্রতিষ্ঠানগুলোতে দিন। এ প্রতিষ্ঠানগুলো মানুষের জীবন নতুন করে সাজানোর কাজ করে।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me