হাতা কাটা পোশাক পরতে চাইলে...

 

খাটো হাতা বা লম্বা হাতার ফ্যাশন ঘুরেফিরে আসে, কিন্তু হাতা কাটার ফ্যাশনটা সব সময়ই যেন চলছে। হাতা কাটা পোশাক পরতে চাইলে খেয়াল রাখতে হবে কিছু বিষয়। আপনাকে মানাচ্ছে কি না, তা তো দেখতে হবেই। হাতের অনেকটা অংশ অনাবৃত থাকে, তাই হাতের যত্ন নেওয়া জরুরি।

অভিনয়শিল্পী সোহানা সাবা নিজের নকশা করা পোশাক পরতে পছন্দ করেন। তিনি জানান, গরমের সময় পোশাকে আরাম খুঁজতে হাতা কাটা পোশাকের কোনো বিকল্প নেই। এ ছাড়া কোনো উপলক্ষ ও আয়োজনে হাতা কাটা পোশাকের মাধ্যমে সাজে জমকালো ভাব ফুটিয়ে তোলা সম্ভব।

হাতের গড়ন অনুযায়ী বেছে নিন পোশাকের ধরন। এ নিয়ে পরামর্শ দিলেন বিবিয়ানার ফ্যাশন ডিজাইনার লিপি খন্দকার। যাঁদের হাতের গড়ন ভারী, তাঁরা হাতা কাটা পোশাকের ক্ষেত্রে পোশাকের কাঁধের অংশ একটু চওড়া করে নিন। এর সঙ্গে পেছনের দিকে ওঠানো গলা থাকলেও ভালো দেখাবে। পুরো বন্ধ গলা না হলেই ভালো হয়।

আপনি চাইলে কাঁধ থেকে এক বা দেড় ইঞ্চি পরিমাণ চওড়া ছোট ম্যাগি হাতাও পরতে পারেন। যাঁরা মাঝারি গড়নের, তাঁরা কাঁধ উঁচু ও বন্ধ গলার পোশাকটি হাতা কাটা পরতে পারেন। এ ক্ষেত্রে ব্লাউজ ও কুর্তা—দুটোতেই ভালো মানিয়ে যাবে। যাঁদের হাতের গড়ন বেশি চিকন, তাঁরাও চওড়া কাঁধের হাতা কাটা কুর্তা বা কামিজ পরুন। গলাটা এ ক্ষেত্রে ওঠানো হলেই ভালো দেখাবে। অন্যদের জন্য তো বাধাই রইল না। মনের মতো কাঁধ ও গলার কাট বেছে নিতে পারেন। চিকন কাঁধের হাতা কাটা পোশাকগুলো কম বয়সী মেয়েদের জন্য অধিক মানানসই।
বিন্দিয়া এক্সক্লুসিভ হেয়ার অ্যান্ড বিউটি কেয়ারের রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন কচি বলেন, ‘আমাদের শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় হাতের ত্বকের রং গাঢ় হয়। হাতা কাটা পোশাক পরার আগে হাতের জন্য কিছু বাড়তি পরিচর্যার সময় বের করে নিতে হবে।’

সপ্তাহে অন্তত এক দিন পুরো হাত ম্যানিকিওর করতে হবে। ঘরে বসেও করতে পারেন হাতের যত্ন। একটি ছোট গামলায় কুসুম গরম পানিতে শ্যাম্পু ও লেবুর রস মিশিয়ে কিছু সময় দুই হাত ডুবিয়ে রাখতে হবে। এরপর কোমল ব্রাশ দিয়ে আলতো ঘষে হাতের মরা চামড়া তুলে ফেলতে হবে। এরপর ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে। যাঁদের হাত ও বাহুতে রোদে পোড়া দাগ রয়েছে, তাঁরা কাগজি লেবু খানিকক্ষণ ঘষে ধুয়ে ফেললে উপকার পাবেন। হাতা কাটা পোশাক পরার আগে অবশ্যই হাতের আঙুল থেকে কাঁধ পর্যন্ত অবাঞ্ছিত লোম ওয়্যাক্স করে নিন। এরপর হাতের জন্য মানানসই প্যাক লাগিয়ে একটু পর ধুয়ে ফেলুন। হাতের ত্বক উজ্জ্বল দেখাতে ফেয়ারপলিশও করাতে পারেন। রাতের বেলায় পানিতে জলপাই তেল মিশিয়ে হাতে হালকা ম্যাসাজ করে নিন। পরদিন সকালে হাত দুটি সজীব ও উজ্জ্বল দেখাবে। যেকোনো অনুষ্ঠানে মুখের জমকালো সাজের সঙ্গে হাতকেও খানিকটা সাজিয়ে নিন। হাতে প্যানকেক লাগিয়ে তার ওপর শাইনিং পাউডারের পরশ বুলিয়ে নিতে ভুলবেন না। প্রয়োজনে বাহুমূলের নিচেও প্যানকেক ও শাইনিং পাউডার লাগিয়ে নিন।

এ ছাড়া হাতা কাটা পোশাক পরলে ভেতরের পোশাকটি কেমন পরছেন, তা-ও খেয়াল রাখুন। সেটি যেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হয় এবং পোশাকের কাঁধের অংশের পাশ দিয়ে বেরিয়ে না থাকে।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me