পরিবার ভালোবাসার মানুষটিকে অপছন্দ করলে কী করবেন?

দীর্ঘদিনের প্রেম আপনাদের দুজনের। কিছুতেই দুজন দুজনকে ছাড়া থাকতে পারেন না। দুজনেই পড়াশোনার পাট চুকিয়ে চাকরী করছেন। আর তাই বিয়ের সিদ্ধান্তও নিতে চাইছেন আপনারা। আপনাদের সম্পর্কের কথা দুই পরিবারই জানে। কিন্তু অনেক কষ্টে একজনের পরিবার রাজি হলেও অপরজনের পরিবারকে রাজি করাতে পারছেন না কিছুতেই। ফলে আপনাদের বিয়ের সিদ্ধান্তটাও আটকে গিয়েছে।
এমন বিপাকে অনেকেই পড়ে থাকেন। যাকে বিয়ে করতে চাইছেন কিংবা ভালোবাসেন তাকে আপনার পরিবার পছন্দ না করার একটি সম্ভাবনা থাকে। আর এই অপছন্দের পেছনে অনেক সময় বিশেষ কারণ থাকে, আবার অনেক সময় বিনা কারণেই পরিবার ঝামেলা করে থাকে। কিন্তু এই সমস্যার কারণে দুজনের মজবুত সম্পর্কেও অনেক সময় চির ধরে। এছাড়াও পরিবারের সাথেও সম্পর্ক খারাপ হয়। আসুন জেনে নেয়া যাক আপনার পরিবার আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে অপছন্দ করলে কী করা উচিত।

সময় দিন

পরিবার ও ভালোবাসার মানুষ- দুটিই যেহেতু আপনার কাছে সমান গুরুত্বপূর্ন তাই পরিস্থিতি সামলাতে আপনার পরিবার, প্রিয়জন ও নিজেকে কিছুটা সময় দিন। ঘটনার আকষ্মিকতায় তাৎক্ষনিক কোনো সিদ্ধান্ত না নিয়ে কিছুটা সময় ধরে চিন্তা ভাবনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া ভালো। অযথা রাগ কিংবা জেদ করে কোনো লাভ নেই, তাতে ভালোবাসার মানুষটির ওপর পরিবারের আরও ক্ষোভ জন্ম নেবে। এ ধরণের পরিস্থিতিতে অনেকেই পালিয়ে বিয়ে করে ফেলে কিংবা আত্মহত্যার মত ঘটনাও ঘটায়, যা একেবারেই অনুচিত। বরং সময় নিয়ে ধীরে ধীরে পরিস্থিতি ঠিক করার চেষ্টা করা উচিত।

অপছন্দের কারণ খুঁজে বের করুন

আপনার পরিবার আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে কেন পছন্দ করে না সেটা জানার চেষ্টা করুন। আপনার ভালোবাসার মানুষটির যোগ্যতা, পোশাক, ব্যবহার, চেহারা কিংবা পরিবার নিয়ে যদি আপনার অভিভাবকদের আপত্তি থাকে তাহলে সেটা জেনে নিন। তাদের চাহিদা সম্পর্কে ভালো করে বুঝতে চেষ্টা করুন। সঙ্গীর সাথে আলাপ করুন আপনার অভিভাবকের অপছন্দের দিক গুলোর কথা। তাহলে সেই বিষয়গুলোকে শুধরে কিংবা মীমাংসা করে পরিবারকে রাজি করানোর চেষ্টা করুন।

সঙ্গী ও পরিবারের সাথে কথা বলুন

আপনার পরিবার যদি আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে একেবারেই পছন্দ না করে থাকে, তাহলে আপনার ভূমিকা হওয়া উচিত মধ্যস্থতাকারী। আপনার পরিবার ও ভালোবাসার মানুষটির মধ্যে মিটমাট করিয়ে দেয়ার এবং তাদেরকে বোঝানোর দায়িত্বটা আপনাকেই নিতে হবে। কারণ আপনার পরিবার আপনার প্রিয় মানুষটির সাথে কথা বলতে রাজি নাও হতে পারে। আবার আপনার ভালোবাসার মানুষটিও আপনার পরিবারের সাথে এই বিষয়ে কথা বলতে রাজি নাও হতে পারেন। তাই আপনার পরিবারকে আপনি বুঝিয়ে বলুন যে আপনি যাকে ভালোবাসেন তার সঙ্গে আপনার বোঝাপড়া ভালো এবং তিনি জীবনসঙ্গী হিসেবে একজন ভালো হবেন বলেই আপনি বিশ্বাস করে থাকেন। সেই সঙ্গে আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে সাহস দিন এবং ধৈর্য্য ধারণ করতে বলুন।

নিজের মন কে প্রশ্ন করুন

যেহেতু সংসার আপনি করবেন তাই নিজের মনকে প্রশ্ন করুন যে আপনার পরিবারের অমতে আপনি কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন কিনা। এছাড়াও আপনার পরিবার যে বিষয়গুলো অপছন্দ করেছে সেগুলো সম্পর্কে আরেকবার ভেবে দেখুন। ভাবুন যে জীবনের চলার পথে এই বিষয়গুলো কি কি সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। সব দিক ভেবে চিনতে নিজের মনকে প্রশ্ন করে দেখুন যে এই সম্পর্ক আপনাকে সুখী রাখতে পারবে কিনা।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me