গবেষণার তথ্য: নাক ডাকায় সৌন্দর্যহানি!


নাক ডাকা ভালো নয়। ঘুমের মধ্যে নাক ডাকার অভ্যাস রয়েছে, এমন মানুষের কাছাকাছি ঘুমানোর যন্ত্রণার আসল রূপ কেবল ভুক্তভোগীরাই জানেন। তবে নাক ডাকার সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তিও বিব্রত থাকেন এবং এক ধরনের দুশ্চিন্তায় আক্রান্ত হন। এ ছাড়া ঘুমের সময় তাঁর স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস ব্যাহত হয়। এসব কারণে তাঁর চোখ-মুখ বসে গিয়ে চেহারার স্বাভাবিক সৌন্দর্য নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে। নাক ডাকা সমস্যায় আক্রান্ত ২০ জন মধ্যবয়স্ক ব্যক্তির ওপর যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সিস্টেম এবং মিশিগান টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটির গবেষকেরা জরিপ চালান। ক্লিনিক্যাল স্লিপ মেডিসিন সাময়িকীতে এসংক্রান্ত একটি গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। এতে গবেষকেরা বলছেন, ঘুমের সময় শ্বাস-প্রশ্বাসের বিঘ্ন ঘটার কারণেই মানুষ নাক ডাকে। চিকিৎসার পরিভাষায় সমস্যাটির নাম স্লিপ অ্যাপনিয়া। স্লিপ অ্যাপনিয়া দূর করতে গবেষকেরা সিপিএপি নামের একটি পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। ওই ২০ জন রোগীর চিকিৎসা গ্রহণের আগের ও পরের চেহারার ছবির মধ্যে তুলনা করে দেখা যায়, চিকিৎসার পর দুই-তৃতীয়াংশ রোগীর চেহারাই আকর্ষণীয় হয়েছে।তাই নাক ডাকা বর্জন করুন। 

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me