বিশ্ব হার্ট দিবস রোববার


২৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ব হার্ট দিবস। এ বছরে দিবসটির প্রতিপদ্য হলো- ‘শিশু, কিশোর, বৃদ্ধা, যুবা, পুরুষ কিংবা নারী, সুস্থ্ হৃদয় গড়তে এসো যাত্রা শুরু করি।’ দিবসটি উপলক্ষে রোববার সরকারি ও বেসকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানান কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

এদিকে, দেশের দক্ষিণাঞ্চলে হৃদরোগীদের জন্য কোনো হাসপাতালে নেই কাডির্য়াক সার্জারির ব্যবস্থা। তাই বছরে এ অঞ্চলে পাঁচ শতাধিক রোগী মারা যাচ্ছে বলে চিকিৎসকদের মন্তব্য।

সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে বরিশালের শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় ও হাসপাতালের একমাত্র কার্ডিওলোজি (শুধুমাত্র ওষুধের মাধ্যমে রোগ নিরাময়) বিভাগে বছরে তিন হাজার রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিন্তু এ ইউনিস্টিউটটি প্রতিষ্ঠার পর গত ১২ বছরে কমপক্ষে ১৩ হাজার রোগীকে কার্ডিয়াক সার্জারির জন্য রাজধানীতে প্রেরণ করেছেন চিকিৎসকরা।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতে, দেশের দক্ষিণাঞ্চল কিংবা বাংলাদেশই নয় গোটা বিশ্বে হৃদ রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা অনেকাংশে বেশি। দিনে দিনে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে।

বিভিন্ন রোগ জনিত কারণে  মৃত্যুর মধ্যে শতকরা ২৯ ভাগই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে থাকে হৃদরোগ জনিত কারণে। তাই বিশেষজ্ঞরা এ রোগকে বিশ্বের এক নম্বর ঘাতক ব্যাধি হিসেবে চিহ্নিত করছে। ফলে জনসচেতনতার জন্য ১৯৮০ সাল থেকে প্রতি বছরের ২৯ সেপ্টম্বর বিশ্বের বিশ্ব হার্ট দিবস পালন করে আসছে।

দিবসটি পালন উপলক্ষে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যপক ডা. গোলাম মাহমুদ সেলিম বলেন, ‘আমাদের দেশে দিনে দিনে এ রোগের প্রকোপ দেখা দিয়েছে।

তাই কার্ডিওলোজি বিভাগের চিকিৎসকদের রোগীর চিকিৎসা দিয়েই থেমে থাকলে চলবে না। এ কারণ জানতে তাদের এ দেশের প্রেক্ষাপটে অনুসন্ধান করতে হবে। তাই এ দিন জনসচেতনতা গড়ে তুলতে হবে।

কার্ডিওলোজি বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. জাকির হোসেন ও হুমায়ুন কবির বলেন, ‘পরিবেশ, সামাজিক, অর্থনৈতিক অস্থিরতার কারণে দিনে দিনে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

কার্ডিওলোজি বিভাগের বিভাগী প্রধান ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. রনজিৎ খাঁ জানান, দক্ষিণাঞ্চলে হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীদের সঠিক চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন। কোন কোন রোগীর জন্য কাডির্য়াক সার্জারিও প্রয়োজন আছে।

তিনি আরও বলেন, ‘অনিয়মিত খাদ্যভাস, ধূমপান, কাজ না করা ও ডায়াবেটিসসহ নানান রোগে আক্রান্ত মানুষ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। তাই এ বছরের দিবসটির প্রতিপাদ্য- ‘শিশু, কিশোর, বৃদ্ধা, যুবা, পুরুষ কিংবা নারী, সুস্থ্ হৃদয় গড়তে এসো যাত্রা শুরু করি’। এ স্লোগানের সাথে সাথে সকলকে এ ব্যাপারে সচেতন হওয়া প্রয়োজন।’

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me