মাদক ও পর্নোগ্রাফির ফল একই


বিষয় দুটো আলাদা হলেও ফল একই। পর্ণোগ্রাফির প্রতি আসক্তি মদ অথবা অন্যান্য নেশাজাতীয় দ্রব্যে আসক্তির চেয়ে ভিন্ন কিছু নয় বলে নিশ্চিত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা পর্ণোগ্রাফির প্রতি আসক্ত এমন ১৯ জন মানুষের মস্তিষ্ক এম.আর.আই স্ক্যানের মাধ্যমে বিশ্লেষণ করে এই ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছেন। অতঃপর তারা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে, অন্যান্য মাদক দ্রব্যের মতো পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণেও কঠোর চাপ প্রয়োগ করা উচিত।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, মাদক গ্রহণ করার সময় মস্তিষ্কের যে অংশটি উদ্দীপ্ত হয় পর্নোগ্রাফী দেখার সময়ও একই অংশ উদ্দীপ্ত হয়। কিন্তু যারা পর্নোগ্রাফীতে আসক্ত নন তাদের মস্তিষ্কে এমন কোন প্রতিক্রিয়া হয় না।

ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের প্রধান ও নিউরোফিজিস্ট ডঃ ভালেরিয়া ভুন বলেন, পর্ণোগ্রাফি দেখার সাথে আসলে মস্তিষ্কের ‘ভেন্ট্রাল স্ট্রীয়াটাম’ নামের একটি অংশের সম্পর্ক রয়েছে। এটিকে মস্তিষ্কের পুরষ্কার প্রদানের কেন্দ্র বলা হয়। এখান থেকেই মানব মনে উৎসাহ,আনন্দ জাগে।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me