অসফল সম্পর্কের কারণ 'কমিটমেন্ট ফোবিয়া'


জীবন নিয়ে একেকজনের দৃষ্টিভঙ্গি ও দর্শন থাকে একেক রকম। কেউ বোহেমিয়ান জীবন পছন্দ করেন, কেউ বা চান থিতু হতে। তবে সাধারণভাবে দেখলে প্রত্যেক মানুষেরই একটা স্থির সম্পর্ক থাকা জরুরি। যে সম্পর্কের কাছে মানুষ পাবে মানসিক আশ্রয়। এ কারণেই মানুষ বিয়ে করে, সংসারী হয়!

তবে সবাই এক রকম নন। অনেকেই বিয়ে করতে চান, কিন্তু ঘর এবং বাইরে সমানতালে সামলাবার জন্য যে আত্মবিশ্বাসটা থাকা দরকার, তার কমতি হয় বলে অনেকেই বিয়ে করে সংসার সাজানোর উদ্যোগ থেকে পিছিয়ে যান বা দ্বিধাবোধ করেন। আবার অনেকেই এই নিয়ে ভীত থাকেন যে, স্থায়ী সম্পর্কটা যদি সুখের না হয়? কিন্তু সম্পর্ককে পরিণতি দিলেই যে তা অশান্তির কারণ হবে, এমনটি ভাবাও আত্মবিশ্বাসের অভাবেরই প্রতিফলন!

হয়তো আপনার প্রেমিক বা প্রেমিকার সাথে আপনার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। একে অন্যের পাশে থাকেন সব সময়। আপনি তাঁকে ছেড়ে থাকতেই পারেন না, তাই তাঁকে বিয়ে করতে চান। আপনার সঙ্গীও আপনাকে ভালোবাসেন, কিন্তু বিয়ের কথা বললেই হয়তো প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান। ভেবে দেখেছেন কি, এর কারণ কী? হয়তো আপনার সঙ্গীরও থাকতে পারে 'কমিটমেন্ট ফোবিয়া'! আপনাদের সম্পর্ক হয়তো অনেক দৃঢ়, তারপরও এই 'কমিটমেন্ট ফোবিয়া' সম্পর্কের পরিণতির পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

ভেবে দেখুন তো, আপনারও কি আছে 'কমিটমেন্ট ফোবিয়া'? দুজন মানুষ তাঁদের সম্পর্ক কোন দিকে নিয়ে যাবেন, তা তাঁদের একান্ত ব্যক্তিগত ব্যাপার। তাঁরা নিজেদের সম্পর্কতেই খুশি রয়েছেন বলে আরো কিছুদিন এভাবেই থাকতে পারেন, আবার বিয়েও করতে পারেন। জীবনে যে সিদ্ধান্তই নিন না কেন, তা যেন হয় স্বতস্ফূর্ত। আপনার সিদ্ধান্তের পেছনে ভবিষ্যত সম্পর্কে দ্বিধা, দ্বন্দ্ব বা নেতিবাচক ভাবনা যেন কোনোরকম ভূমিকা না রাখে। তবে দুজন মানুষের মধ্যে বোঝাপড়া থাকলে সমস্ত সমস্যা সামলে একে অন্যের পরিপূরক হয়ে বেঁচে থাকার আনন্দটাই আলাদা! সেক্ষেত্রে সম্পর্ক পরিণত এবং পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে।

মনে রাখুন এবং ভাবুন :

  • আপনার এবং আপনার সঙ্গীর সম্পর্ক যদি ভালো থাকে তাহলে নিজেদের সম্পর্ককে আরো কিছু দিন সময় দিতেই পারেন। যতদিন বিয়ে করবেন না, ততদিন সম্পর্কের পরিণতি নেই, এমন ভাবার কোনো কারণ নেই। একে অন্যের পাশে থাকা এবং আরো ভালো করে চিনে নেয়ার মাধ্যমেই আসলে সম্পর্ক পরিণত হয়।
  • বিয়ে করলেই প্রেমের সম্পর্ক শেষ যায়, এমন ভাবনা মাথার বাইরে রাখুন। বিয়ে মানে নতুন সংসার, নতুন দায়িত্ব, নতুন চাপ - এটা ঠিক! তবে এই দায়িত্ব সঙ্গীর সাথে ভাগ করে নিলে এই নতুন জীবনের মজাই আলাদা! কে জানে, আপনি হয়তো এসব দায়িত্বের খুঁটিনাটি উপভোগই করবেন!
  • দুজনের নতুন সংসারে সমস্যা থাকবেই! দুজন মিলে সামলালে সমাধানের পথ খোঁজা অনেক সহজতর হয়। কোনোভাবেই নিজের আগামী জীবন নিয়ে নেতিবাচক চিন্তা করবেন না।
  • রোজকার জীবনের স্ট্রেস, টেনশন, দৌড়ঝাঁপ আমাদের থিতু জীবনের প্রতি ভীত করে তোলে। করে তোলে আমাদের কমিটমেন্ট ফোবিক। আমরা সহজে যেমন অন্যের প্রতি বিশ্বাস করতে পারি না, তেমনি কাউকে কথা দিতেও ভয় পাই! আপনার সঙ্গীর যদি এমন সমস্যা থাকে, তাহলে তাঁর সাথে খোলাখুলি কথা বলুন। তাঁকে বোঝানোর চেষ্টা করুন যে, আপনি তাঁর জীবনে সমস্যা নন, প্রশান্তির জায়গা! দেখবেন, তিনি ধীরে ধীরে সমস্যা কাটিয়ে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছেন।
আর যদি সমস্যা থাকে আপনার নিজের, তাহলে মুখোমুখি করুন নিজেকে নিজের সাথে। জিজ্ঞেস করুন নিজেকে, আজীবন অস্থিরতায় ভেসে বেড়াবেন, না কি সম্পর্কের চ্যালেঞ্জটি লুফে নিয়ে বিজয়ী হবেন?

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me