পছন্দের মানুষের সাথে প্রথম সাক্ষাত?

জীবনের প্রথম বেড়াতে যাবেন পছন্দের মানুষটির সাথে। কিন্তু বুঝতে পারছেন না কীভাবে পুরো ব্যাপারটা সামাল দিবেন। আর মনের মানুষটির সাথে প্রথম দেখা করতে তো আর পরিকল্পনা ছাড়া যাওয়া যায়না। তাই জেনে নিন কীভাবে পরিকল্পিতভাবে প্রথম দেখার মূহুর্তগুলোকে স্মরণীয় করে রাখতে পারা যায়।

ডেটিং প্লেস ঠিক করুনঃ
যাওয়ার আগে থেকেই পরিকল্পনা করে রাখুন কোথায় যাবেন, কি খাবেন ইত্যাদি। এই দায়িত্বটি ছেলেটিকেই পালন করতে হবে। কারণ মেয়েরা চায় প্রথম ডেট-এ এ তার সঙ্গীটিই স্থান নির্বাচন করুক। আর আপনার পকেটের বাজেট অনুযায়ী কোথায় খাবেন সেটা ঠিক করে রাখুন। তাহলে হুট করে কোথাও খেতে বসে বিল দেখে অপ্রস্তুত হতে হবেনা ।

দেখা করার সময় ঠিক করুনঃ আগে থেকেই ঠিক করে রাখুন কখন দেখা করবেন। দুই জনই দুজনের সমস্যা বোঝার চেষ্টা করুন। পরস্পরের অসুবিধা হয় এমন সময়ে দেখা করতে চাইবেন না। নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে চেষ্টা করুন দুপুর থেকে সন্ধ্যার আগেই দেখাটা করে ফেলতে। দেখা করার দিন দুজনই সময় মতো যাবেন। জ্যামের কথা মাথায় রেখে বাসা থেকে আগেই বের হবেন। তবে ছেলে সঙ্গীটির একটু আগে পৌঁছানই ভালো। না হলে প্রথমদিন এ ঝগড়াঝাঁটি হয়ে যেতে পারে।

সাজ-সজ্জাঃ ডেটিং এর দিন সকালে একটু ফেস প্যাক লাগিয়ে নিতে পারেন। তাহলে সারাদিন মুখটা ফ্রেশ থাকবে। আগে থেকেই কি পরবেন সেটা ঠিক করে রাখুন। খুব দৃষ্টিকটু কিছু পরবেন না। পোষাক নির্বাচন নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত থাকলে একটু ফর্মাল ধরণের শালীন পোশাক পরতে পারেন। মেয়েরা বেশি গয়না না পরে হালকা গহনা পরে পোশাকের সাথে ম্যাচিং ব্যাগ ও জুতা পড়ুন। সাজে স্নিগ্ধতা রাখার চেষ্টা করুন। আর ছেলেরা রুচিশীল পোশাকের সাথে মানানসই জুতা/স্যান্ডেল পড়ুন। সুন্দর হালকা ঘ্রাণের পারফিউম ব্যবহার করুন। মুখের গন্ধের ব্যাপারে সচেতন থাকুন। আপনি যদি ধূমপায়ী হন তাহলে মাউথওয়াস রাখুন সাথে। 

 

উপহার দিনঃ প্রথম দেখা করতে গেলে ছোট কোনো উপহার নিতে পারেন। একটা ফুল অথবা একটা কার্ডই উপহার হিসেবে যথেষ্ট। মিষ্টি হেসে উপহারটা দিন।

চোখে চোখ রাখুনঃ দুজন একসাথে বসলে চেষ্টা করুন একজনের প্রতি আরেকজনের মনোযোগ রাখার। একে অপরের চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন। বার বার আশেপাশে তাকালে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে। প্রিয়জনটিকে জানিয়ে দিন যে তাকে সুন্দর লাগছে।

কথা বলুনঃ দুটি মানুষ এক সাথে বসে আছেন। কিন্তু দুজনেই চুপ করে আছেন। এমন হলে কিন্তু চলবে না। প্রথম দেখায় সবার মাঝেই লজ্জা থাকে। কিন্তু দুজনই চেষ্টা করুন কথা বলে জড়তা কমিয়ে ফেলতে। তাই বলে অতিরিক্ত কথা না বলাই ভালো। পরিমিত কোটায় দুজনে দুজনার পছন্দ অপছন্দ গুলো জেনে নিন।

খাওয়াঃ খাওয়ার আগে আপনার সঙ্গীর কোন খাবারটা পছন্দ আর কোনটা অপছন্দ সেটা জেনে নিন। তার পছন্দে খাবার অর্ডার করুন। ওয়েটারকে উচ্চশব্দে না ডেকে হাতে ইশারা করে ডাকুন। লক্ষ্য রাখুন খাওয়ার সময় শব্দ না হয়। আপনার সঙ্গীকে এটা ওটা বেড়ে দিন। এতে তার মন জয় হবে সহজেই।

বিদায় বেলাঃ গল্প ও খাওয়া হলো, এবার বিদায়ের পালা। বিদায় দেয়ার সময় পুরুষ সঙ্গীটির উচিত হবে মেয়েটিকে এগিয়ে দেয়া। সম্ভব হলে বাসা পর্যন্ত দিয়ে আসা উচিত। বিদায় দেয়ার সময় তাকে জানিয়ে দিন যে তার সাথে দেখা করে আপনার ভালো লেগেছে।

প্রথম দেখার ফলাফলের উপরই নির্ভর করবে আপনার সম্পর্কের বাকি পরিণতি। তাই ভদ্রতা বজায় রাখুন, নিজেকে সঠিক ভাবে প্রকাশ করুন। নার্ভাস ভাবকে পাশে ঠেলে উপভোগের চেষ্টা করুন পরস্পরের সঙ্গ ও কথোপকথন। প্রথম সাক্ষাত খুব বেশি লম্বা না করাই ভালো। মনে রাখবেন, কোনো পরিস্থিতিতেই নার্ভাস হওয়া চলবে না। মনে আত্মবিশ্বাস রাখুন সবসময়।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me