আপনি নারী এবং কর্মক্ষেত্রের প্রধান


আমাদের এই সমাজে নারীদের সহকর্মী হিসেবে পেতে ভালো লাগলেও, কর্মক্ষেত্রের প্রধান হিসেবে পছন্দ করেন না অনেকেই। নিজের যোগ্যতার ও নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতার পরীক্ষা পুরুষদের থেকে নারীদেরকেই কিন্তু অনেক বেশিবার দিতে হয়। যেসব মহিলা একটি কর্মক্ষেত্রের প্রধান হিসেবে কাজ করেন তাদের দরকার হয় অনেক বেশি আত্মবিশ্বাস ও মনোবলের। কর্মক্ষেত্রের প্রধান হয়ে কি করে একজন নারী সুষ্ঠু ভাবে সব কিছু পরিচালনা করতে পারেন তাই নিয়েই আজকের এই আলোচনা।

কি করবেন–

  • ১) কর্মক্ষেত্রের কর্মীদের মধ্যে কাজের দায়িত্ব ভাগ করে দিন। চেষ্টা করুন নিজে সেই কাজ তত্ত্বাবধান করতে। অফিসে কেউ ভালো কাজ করলে মুক্ত কণ্ঠে তা স্বীকার করুন। আপনার কাছে কেউ কোন সমস্যা নিয়ে এলে তাকে বকাবকি না করে ব্যক্তিগত ভাবে দায়িত্ব নিয়ে তার সমস্যার সমাধান করুন। একজন রুঢ় পুরুষ বসের জন্য কর্মক্ষেত্রে সমস্যা যেটুকু না হয়, নারীদের ক্ষেত্রে তা হয় অনেক বেশী।
  • ২) একটা দায়িত্বপূর্ণ পদের হাল ধরার প্রথম ধাপই হল কর্মক্ষেত্রের পরিস্থিতিটা ভালোভাবে বুঝে নেয়া। শত ব্যস্ততার মধ্যেও কিছুদিন পর পর আপনার সহকর্মীদের সাথে একটি গেট টুগেদারের ব্যবস্থা রাখুন। অফিস বা ক্যাফেটেরিয়াতে এই সাক্ষাতের ব্যবস্থা রাখতে পারেন। কাজের খুঁটিনাটি, আগামী দিনের পরিকল্পনা ও ব্যক্তিগত খোঁজখবর সবই করতে পারেন এই সাক্ষাতে। অফিসিয়াল কাজ ও পরিকল্পনা সম্মন্ধে সহকর্মীদের প্রশ্ন ও মন্তব্য করার সুযোগ দিন যাতে আপনার পিঠ পিছে কানাকানি না করে সবাই নিজের বক্তব্য সোজাসুজি বলতে পারেন। এই আলোচনা থেকে মূল্যবান মতামতও পেতে পারেন ।
  • ৩) কাজ নিয়ে কোন সমস্যায় পড়লে কর্মক্ষেত্রের কোন অভিজ্ঞ ব্যক্তির কাছ থেকে পরামর্শ নিতে পারেন। এই ব্যাপারে কোন সংকোচ না করাই ভালো। কোন জরুরী ব্যাপারে সিধান্ত নিতে হলে কর্মক্ষেত্রের সবার মতামত শুনতে পারেন। কিন্তু সিধান্ত নেয়ার সময় কারো দ্বারা সম্পূর্ণ প্রভাবিত না হওয়াই ভালো। এ ব্যাপারে নিজের ওপর ভরসা রাখুন। তবে সিধান্ত কেন নিচ্ছেন সেটা সবাইকে জানালে কর্মক্ষেত্রের পরিচালনা ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা আসবে।
  • ৪) যেসব কর্মীকে নিয়ে আপনার কাজে অসুবিধা হচ্ছে তাদের সাথে ব্যক্তিগত আলোচনায় বসুন। অপরের কথায় প্রভাবিত না হয়ে তাঁর সম্বন্ধে নিজে ভালো করে জেনে নিন। হয়তো কোন ভুল ধারনার কারণে তিনি স্বাভাবিক ব্যবহার করতে পারছেন না। তাঁর সমস্যাটা বুঝে নিন, বোঝার চেষ্টা করুন আপনাকে নিয়ে তাঁর কি সমস্যা। এবং আপনার পক্ষে যতটুকু সম্ভব সাহায্য করুন।
  • ৫) আপনার ডিসিপ্লিন, নিরপেক্ষতা ও কাজের প্রতি শ্রদ্ধা দেখেই কর্মক্ষেত্রের সবাই আপনাকে তাদের প্রধান হিসেবে সহজেই মেনে নেবে। কর্মক্ষেত্রে ঈর্ষা ও সমালোচনা থেকে নিজেকে সর্বদা দূরে রাখুন। চেষ্টা করুন সবাইকে বিভিন্ন কাজে সাহায্য করতে। নিজের কাজের প্রতি সচেতন মানুষ হিসেবেই যেন সবাই আপনাকে চেনে, নারী বা পুরুষ হিসাবে নয়। আপনার প্রাপ্য সম্মান এভাবেই পাবেন।

কি করবেন না-

  • ১) আপনি নারী, এই বাহান দিয়ে কখনো বাড়তি সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করবেন না।
  • ২) কারো সাথে খারাপ ব্যবহার বা আপত্তিকর ভাষা ব্যবহার করবেন না।
  • ৩) অন্য কেউ আপনার বস হওয়াটাকে পাত্তা দিতে চাইছে না, কিংবা আপনাকে হেয় করছে- এমন পরিস্থিতিতে মাথা গরম করবেন না। শান্ত থাকুন। যে আপনাকে হেয় করছে তাঁর উদ্দেশ্যই আপনাকে হেয় করা।
  • ৪) সকলের মন জয় করার জয় একেবারে নরম হয়ে চলতে হবে, তা কিন্তু মোটেও নয়। আপনি উচ্চ পদ পেয়েছেন নিজের যোগ্যতায়। তাই কাজের খাতিরে প্রয়োজনে কঠোর হন।
  • ৫) নিজের সাজ পোশাক ও অন্যান্য আচরণ নিজের বয়স ও পদ মর্যাদার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ রাখুন।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me