বিয়ের ক্ষেত্রে ৭টি সতর্কতা



যে কোনো মানুষের জীবনে বিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সাধারণত আমরা অনেক আশা নিয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসি। কিন্তু সবার জীবনে এই বিয়ে নামক অধ্যায়টি সুখের হাওয়া বয়ে নিয়ে আসে না। বিচ্ছেদ ঘটে যায় কিছুদিন যেতে না যেতেই। আসলে এর পেছনে যে কারণগুলো কাজ করে সেগুলো সম্পর্কে আমরা জানার আগেই ঘটে যায় জীবনের বড় একটি সম্পর্কের পরিসমাপ্তি। আর তাই এসব কারণগুলো সম্পর্কে আগে থেকেই আমাদের জেনে নেওয়া উচিত ।সুখী দাম্পত্য জীবন সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ সতর্ক সংকেত পাঠকের জন্য দেওয়া হল:

১) অতীত স্মৃতি, নাম ডাক, শব্দের অপব্যবহার এবং মর্যাদাহানি প্রভৃতি বিষয়গুলো সাধারণত একটি সমস্যা হিসেবে দুই জনের সামনে আসতে পারে। এ বিষয়গুলোকে পরিহার করুন।

২) সামান্য বিষয় নিয়ে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়ে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনি চেষ্টা করুন সাথেসাথে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে।এবং সেদিন একটু দেরি করে বাসায় ফিরুন। এছাড়াও মাঝে মাঝে খুবই তুচ্ছ বিষয় নিয়ে দু’জনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া বেঁধে যেতে পারে, যেখানে হয়তো আপনার কিছু করার থাকে না। সেক্ষেত্রে ঝগড়া বেশিদূর আগাতে না দিয়ে যে কোনো একজন চুপ করে যান অথবা স্থান ত্যাগ করুন।

৩) একসাথে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে বেশি আলোচনা করবেন না। কেননা সেখানে নিজের যুক্তিকে প্রতিষ্ঠিত করতে ঝগড়া হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

৪) গোপনে কোনো কাজ করার চেষ্টা করবেন না। কেননা বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে বড় ধরণের কোনো দূঘর্টনা ঘটতে পারে।

৫) পরিবারকে কখনও একার ভাববেন না। তাহলে সম্পর্কের মাঝে দেয়াল তৈরি হয়ে যাবে। পরিবারকে সবসময় স্বামী-স্ত্রী দু’জনের করে ভাবুন।

৬) যদি আপনি প্রতারক হন তাহলে দাম্পত্য জীবন বেশিদূর এগোবেনা। যেটি পারিবারিক জীবনে দুর্ভোগ ডেকে আনবে এবং এ বিষয়টি ক্ষমার অযোগ্য একটি ভুল, যেটি আপনার পারিবারিক জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটাবে।

৭) স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে সেক্সকেই প্রধানরূপে উপস্থাপন করবেন না। দু'জনের সম্মতিতে দৈহিক মিলনে প্রবৃত্ত হন। সেক্ষেত্রে মানসিক প্রশান্তির সাথে উভয়ের সম্পর্কও গভীর হবে।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me