ঘর সাজবে উৎসব আমেজে




যেমনটা সাজবে বসার ঘর: বসার ঘর হলো অতিথি আপ্যায়নের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। আপনার পছন্দ এবং রুচিবোধ প্রাধান্য দিয়ে দেশীয়, ভিক্টোরিয়ান, মডার্ন— এ তিন ধরনের স্টাইলে সাজাতে পারেন লিভিংরুম বা বসার ঘর। যদি কাঠের কারুকার্যময় আসবাব আপনার পছন্দের তালিকায় থাকে, তবে নিঃসন্দেহে সেটা ভিক্টোরিয়ান স্টাইল। তাই আরেকটু গর্জিয়াস করতে চাইলে ফার্নিচারের পাশাপাশি ঘরের পর্দায়ও নিয়ে আসুন ভিক্টোরিয়ান স্টাইল। বিভিন্ন ড্রেপিংয়ের মাধ্যমে তৈরি করে নিন জানালার পেলমেট, সঙ্গে ম্যাচিং ঝালর অথবা লেস। দুই লেয়ারে তৈরি করুন পর্দা। পেলমেটের সঙ্গে মিল রেখে ভারী পর্দা নির্বাচন করুন আর সঙ্গে ম্যাচিং অথবা কন্ট্রাসটিং নেট অথবা মসলিনের শেয়ার দেবে ভিন্ন মাত্রা। সেন্টার টেবিলে একটি বড় ক্রিস্টালের পাত্রে পানি দিয়ে রেখে দিন তাজা ফুলের পাপড়ি, সঙ্গে ফ্লোটিং ক্যান্ডেল। ঝুলন্ত লাইটের ব্যবস্থা থাকলে সেগুলোকে পরিবর্তন করে নতুন ডেকোরেটিভ লাইট ঝুলিয়ে দিন। সেন্টার টেবিলের নিচের অংশজুড়ে বিছিয়ে দিন সিনথেটিক কার্পেট। কেউ যদি ইকেবানা শৌখিন হন, তাহলে বিদেশী ফুল, গোলাপ, লিলি, জারবেরা দিয়ে তৈরি করুন নান্দনিক সাজ।

পরিপাটি-প্রশান্তির শোয়ার ঘর: বেডরুম মেকওভারের সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে ঘরের আসবাব একটু এদিক-ওদিক সরিয়ে নতুনভাবে সাজিয়ে ফেলা। নতুন পোশাক কেনার পাশাপাশি নতুন বিছানা চাদর, পর্দা, কুশন কভার ইত্যাদি পরিবর্তনে আপনার শোয়ার ঘরটি হয়ে উঠবে আকর্ষণীয়। যেহেতু ঈদ, তাই প্রতিটি ঘরকে সাজাতে পারেন আপনার পছন্দের রঙটিকে বেছে নিয়ে থিমবেইজ আয়োজনে। শোয়ার ঘরের বিছানার চাদরটি হওয়া চাই একটু গর্জিয়াস, সঙ্গে ম্যাচিং পর্দা ও নানা রঙের কুশন দেবে বাড়তি সৌন্দর্য। তবে লক্ষ রাখবেন, একঘেয়েমি দূর করতে কন্ট্রাস্ট রঙ বিশেষ ভূমিকা পালন করে। নতুন শতরঞ্জি কিংবা রাগ ফ্লোরে বিছিয়ে দিন। বিছানার পাশের সাইড টেবিলে রেখে দিন কিছু তাজা ফুল। যার ম-ম গন্ধে অতিথির মনকে ভরিয়ে তুলবে। সম্ভব হলে দেয়ালের রঙ পরিবর্তন করুন। একটু ভিন্ন মাত্রা দিতে বেডের মাথার কাছে দেয়ালে লাগিয়ে দিন ওয়ালপেপার। তবে লক্ষ রাখবেন, যে ফ্যাব্রিকসই বেছে নেন না কেন, তা যেন ঘরের রঙ এবং আসবাবের সঙ্গে মানানসই হয়। খাটের সঙ্গে জুড়ে থাকা বেডসাইড টেবিলের ল্যাম্প দুটিতে আনুন নতুনত্ব।

বেডরুমের জন্য পর্দা নির্বাচন করুন ঘরের পজিশন অনুযায়ী। রাস্তার কাছাকাছি হলে একটু ভারী ফ্যাব্রিকের পর্দা বেছে নিন, যাতে বাইরের আলো ও শব্দ ভালোভাবে চাপা পড়ে। যদি বেডরুমে বাইরের আলো তেমন না আসে, তাহলে ট্রান্সপারেন্ট নেট, মসলিন বা জর্জেটের পর্দা বেছে নিন, যাতে কিছুটা আলো ঢুকতে পারে।

পুরো ঘরের ফার্নিচার নির্বাচন করুন সিম্পল ও জ্যামিতিক ফর্মের। মডার্ন কনসেপ্টের জন্য বেশি গর্জিয়াস পর্দা নয় বরং সিম্পল ডিজাইনের পর্দা বেছে নিন। শোপিস অথবা সেন্টার পিস যা-ই বলুন না কেন, লক্ষ রাখুন সেটা যেন মানিয়ে যায় পুরো ঘরের সঙ্গে। মডার্ন ফার্নিচারের ক্ষেত্রে সোফার কভারে ফ্লোরাল ডিজাইনের ফ্যাব্রিকস এড়িয়ে চলুন। দেশীয় আমেজ আনতে বাঁশ, বেত, রড-আয়রনের ফার্নিচারের সঙ্গে খাদি কাপড়ের পর্দা ও কুশন কভার ব্যবহার করুন। ব্লক, বাটিক টাইডাই অথবা কাতান পাড় লাগিয়ে তৈরি করে নিন আপনার পছন্দসই পর্দা। ঘরের এক কর্নারে মাটির চাড়িতে পানি দিয়ে রেখে দিন কিছু ফুল এবং ফুলের পাপড়ি সঙ্গে মোমবাতি।

ঈদের সাজে খাবার ঘর :

খাবার ঘরটি হচ্ছে অতিথিদের মন জয় করার জায়গা। তাই ঘরটিতে শুধু সুন্দর করে খাবার পরিবেশনই নয়, আশপাশের আয়োজনও হওয়া চাই খাবারের মতো আকর্ষণীয়। খাবার ঘরের পর্দা হালকা সবুজ রঙের হলে ভালো, এতে ফ্রেশ একটা ভাব থাকে। টেবিলে নতুন টেবিলক্লথ বিছিয়ে দিন। যদি কাপড়ের টেবিলক্লথ হয়, তাহলে এর ওপর পাতলা ট্রান্সপারেন্ট পলিথিন ব্যবহার করুন খাবার পরিবেশনের আগে। কাচের গ্লাস টপ টেবিল হলে বিছিয়ে দিন টেবিল রানার, টেবিল ম্যাট এবং ম্যাচিং ন্যাপকিন। টেবিলের মাঝখানে রেখে দিন আকর্ষণীয় ফলের ঝুড়ি, তাতে তাজা কিছু ফল।

0 comments:

Post a Comment

" কিছু স্বপ্ন আকাশের দূর নীলিমাক ছুয়ে যায়, কিছু স্বপ্ন অজানা দূরদিগন্তে হারায়, কিছু স্বপ্ন সাগরের উত্তাল ঢেউ-এ ভেসে যায়, আর কিছু স্বপ্ন বুকের ঘহিনে কেদে বেড়ায়, তবুও কি স্বপ্ন দেখা থেমে যায় ? " সবার স্বপ্নগুলো সত্যি হোক এই শুভো প্রার্থনা!

Follow me